বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:০৯ অপরাহ্ন

সৈয়দপুরে-এক ঝাক তরুন মিলে “সেতুবন্ধনের পাখি বাঁচাও, প্রকৃতি বাঁচাও” ব্যতিক্রম উদ্যোগ

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় বুধবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৬
  • ১৮১ বার পড়া হয়েছে

 

 

 

মহিনুল ইসলাম সুজন,জেলা প্রতিনিধি নীলফামারীঃঃ-এসো পাখির বন্ধু হই, সুন্দর এ পৃথিবীকে বাঁচাই। এ স্লোগানকে সামনে রেখে নীলফামারীর সৈয়দপুরের ‘সেতুবন্ধন’ সংগঠনের উদ্যোগে পাখির নিরাপদ আবাসস্থল গড়ে তোলার প্রচেষ্টায় গাছে গাছে কলস লাগানো হয়েছে যা কিনা নিঃসন্দেহে বলা যেতে পারে একটি ব্যতিক্রম কর্মসুচী ।সৈয়দপুর উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নে সেতুবন্ধনের পাখি বাঁচাও, প্রকৃতি বাঁচাও কর্মসুুচীর ধারাবাহিক অংশ হিসেবে  দিনভর নানান রকমের গাছে গাছে কলস লাগানো বিস্তার বেড়েই চলেছে। ‘সেতুবন্ধন’ সংগঠনের এই কর্মসুচীর সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেয় মছে হাজী পাড়ার প্রায় অর্ধশতাধিক তরুণও।বুধবার উক্ত এলাকার বাসিন্দা আছির উদ্দিন জানান, আগত হামরা নানান জাতের পাখি দেখবার পাইছিনো কিন্তু এলা সেই পাখি গুলা আর দেখা যায় না।একইদিনে- মছে হাজী পাড়ার তরুণ স্বেচ্ছাসেবক জিহাদ-উল-আলম সেতুবন্ধন সংগঠনের এ কর্মসুচীকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন,দেশে যখন এক শ্রেনীর মানব নামের দানবেরা দিনভর নানান ধরনের অতিথি পাখিসহ দেশীয় প্রজাতির পাখিদের শিকারের নামে ধ্বংশে ব্যস্ত ঠিক তখনি সেতুবন্ধন সংগঠনের পাখি বাঁচাতে ও প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষার্থে এ কর্মসূচি সত্যিই অনেক প্রশংসারই যোগ্য। আর তাই আমরাও সেতুবন্ধন সংগঠনের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে প্রকৃতিতে চঞ্চলতা সৃষ্টি করা দৃষ্টিনন্দন উপকরণ পাখি রক্ষায় তাদের সাথে নিজেদের সাধ্যমতো প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

 

 

2016-10-11-04-17-12
সেতুবন্ধন সংগঠনের সহ-সভাপতি খুরশিদ জামান কাকন জানান, আমরা কিছু তরুণ উদ্যমী যুবক পাখির আবাসন নিশ্চিতে এবং পাখির বংশবিস্তার বৃদ্ধিতে ‘সেতুবন্ধন’ সংগঠনে একত্রিত হয়ে পুরো সৈয়দপুরব্যাপী পাখির নিরাপদ আবাসন হিসেবে গাছে গাছে কলস লাগানোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছি। আর তারই ধারাবাহিতায় অন্যান্য অনেক স্হানের মতই বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নেও আমাদের এই কর্মসুচী কয়েকদিন পুর্বে পালন করেছি।যা অব্যাহত থাকবে আগামীর দিনেও।
তরুণ উদ্যোক্তা ও সেতুবন্ধন সংগঠনের সাধারণ  সম্পাদক আলমগীর হোসেন এই প্রতিবেদককে  জানান, আমরা ২০১২ সাল হতে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরব্যাপী পাখি রক্ষায় এ কর্মসুচী চালাচ্ছি। আমরা আগামী দিন গুলোতে পুরো নীলফামারী জেলা জুড়ে পাখির নিরাপদ আবাসস্থল নিশ্চিতে এ কর্মসুচী চালিয়েই যাব।এজন্য সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানসহ যে কোনো উদার মনের মানুষের সহযোগীতা পেলে আমাদের এই উদ্যোগ পুরো দেশ জুড়ে আমরা চালিয়ে যাব।আসলে দুঃখজনক হলেও সত্য আমাদের দেশে পাখিদের আবাস্হল অনেক কম।তাই অতিথি পাখিসহ দেশীয় পাখি গুলো এখন আর ঝাকে ঝাকে চোখেই পড়েনা।আমরা ইতিপুর্বে যেসব এলাকায় এই কর্মসুচী পালন করেছি সে সব এলাতেই পাখিদের আনাগোনা বেড়ে চলেছে।আর এসব পাখিদের মুগ্ধ গুন্জনে এলাকার মানুষেরা বেদম খুশি।যদি সমাজের বিত্তবান মানুষেরা আন্তরিক ভাবে আমাদের এই কর্মসুচীতে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে এগিয়ে আসেন তবে আমরা সকলেই সুন্দর প্রকৃতির পরিবেশে জীবন যাপন করতে পারি। পাখি বাঁচাও, প্রকৃতি বাঁচাও এ কর্মসুচীতে সর্বদাই উপস্হিত থেকে কাজ করে চলেছেন,সংগঠনটির -যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আফরোজ আহমেদ সিদ্দিকী  টুইংকেল, সাংগঠনিক সম্পাদক আহসান হাবীব জনি, উপ-সাংগঠনিক সম্পাদক তামিল হোসেন। এছাড়াও বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের কর্মসুচীতে অন্যান্য সদস্যের মধ্যে  উপস্থিত ছিলেন উক্ত এলাকার সাদিকুল ইসলাম, মোক্তাসিন ইসলাম, রবিউল ইসলাম, রহুল আমিন, আব্দুর রশিদ, আবু হানিফা, মহিদুল, রিফাত, নিরব, সাকিব রিয়াজুল, রেহান, মিঠুন প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451