শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৪:০২ অপরাহ্ন

২৬ মার্চ’ স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে ফেরার পথে আ. লীগ-বিএনপির সংঘর্ষ, আহত ১৫ আটক ২

অনলাইন ডেক্স
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৬ মার্চ, ২০২২
  • ৮ বার পড়া হয়েছে

লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে ফেরার পথে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১৫ নেতাকর্মী আহত হয়। এ ঘটনায় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন ও উপজেলা কমিটির যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক পৌরসভার কাউন্সিলর দিদার হোসেন খন্দকারকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ শনিবার (২৬ মার্চ) দুপুরে রামগতি থানা পুলিশের ওসি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে সকাল ৮টার দিকে উপজেলার আলেকজান্ডার বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন বিএনপি নেতা জামাল উদ্দিন, দিদার হোসেন খন্দকার, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শাহ মোহাম্মদ রাকিব, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, রামগতি পৌর যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফ হোসেন রাব্বি ও ছাত্রলীগের রাকিবুল ইসলাম সাব্বিরসহ ১৫ জন। আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা নিয়েছেন।

আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, আ স ম আবদুর রব সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণে স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা চলে আসেন। পরে তারা আলেকজান্ডার বাজারে উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে বসে ছিলেন। বিএনপি নেতাকর্মীরা ফুল দিয়ে ফেরার পথে লাঠিসোঁটা নিয়ে মিছিল করে। এ সময় মিছিল থেকে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক স্লোগান দেওয়া হয়। পরে স্লোগান ও লাঠিমিছিল বন্ধ করতে বললে তারা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। ইটপাটকেল ছুড়ে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ও ভাঙচুর করে।

বিএনপি সূত্র জানায়, ফুল দিয়ে ফেরার পথে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে আওয়ামী লীগের লোকজন বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে। এ সময় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিনসহ তাদের নেতাকর্মীরা আহত হন। আওয়ামী লীগের লোকজন উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ও ভাঙচুর করেছে। পরে আহত অবস্থায় জামাল ও দিদারকে পুলিশ আটক করে নিয়ে যায়। আহত অন্যরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আকবর হোসেন সুখী বলেন, আমাদের ওপর বিএনপির হামলা ও লাঠিমিছিল পূর্বপরিকল্পিত। তাদের হামলায় আমাদের অন্তত ১০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহেদ পারভেজ বাদী হয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট হাসিবুর রহমান হাসিব বলেন, কোনো কারণ ছাড়াই আওয়ামী লীগের লোকজন আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছে। পরে আহত দুই নেতাকে পুলিশ আটক করেছে। তাদের আটকের ঘটনার নিন্দা জানাই।

এ ব্যাপারে রামগতি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, মিছিল থেকে বিএনপি নেতাকর্মীরা উসকানিমূলক স্লোগান দেয়৷ এতে আওয়ামী লীগ-বিএনপির নেতাকর্মীরা মুখোমুখি অবস্থান নেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থল থেকে দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451