শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ০১:২৩ পূর্বাহ্ন

ডা. জাফরুল্লাহ ভারতীয় দূতাবাসের সামনে ফেলানীর ভাস্কর্য চান

অনলাইন ডেস্কঃ
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৭ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর ভারতীয় দূতাবাসের সামনের রাস্তায় ফেলানীর ভাস্কর্য স্থাপনের পরামর্শ দিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। আজ বৃহস্পতিবার শিশুকল্যাণ মিলনায়তনে বাংলাদেশ লেবার পার্টির উদ্যোগে ফেলানী হত্যাদিবসে ‘সীমান্ত আগ্রাসনবিরোধী কনভেনশনে’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন।

২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারের চৌধুরীহাট সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের (বিএসএফ) গুলিতে নিহত হয় বাংলাদেশি কিশোরি ফেলানি। ২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর ভারতের কোচবিহারে জেনারেল সিকিউরিটি ফোর্সেস আদালত ফেলানী হত্যার বিচারে আসামি বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষকে খালাস দেন।

এরপর ফেলানীর বাবার দাবির পরিপ্রেক্ষিতে পুনরায় বিচারকাজ শুরু হয়। ২০১৫ সালের ২ জুলাই আসামি অমিয় ঘোষকে পুনরায় খালাস দেন আদালত। বিচারের এই রায় প্রত্যাখ্যান করে ভারতের সুপ্রিম কোর্টে একটি রিট করা হয়েছে। সেটি এখনো ফয়সালা হয়নি। আজ সারা দেশে নানা আয়োজনে দিবসটি পালিত হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ‘সীমান্ত আগ্রাসনবিরোধী কনভেনশনে’র আয়োজন করে লেবার পার্টি।

সেখানে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘ফেলানী হত্যা দিবসে আমাদের নিজেদের স্বার্থে দুটি কাজ করতে হবে। দুটো ভাস্কর্য করতে হবে। একটা কুড়িগ্রামের সীমান্তে, যেখানে তাকে হত্যা করা হয়েছে। আরেকটা বাংলাদেশে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের সামনের রাস্তায়। আর ভারতীয় দূতাবাসের সামনে রাস্তার নাম হওয়া উচিত ফেলানীর নামে।’

লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরল হক নুর, জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলনের (এনডিএম) চেয়ারম্যান ববি হাজ্জাজ, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা অ্যালবার্ট পি কস্টা, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গণমাধ্যম উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু, ‘দেশ বাঁচাও, মানুষ বাঁচাও’ সংগঠনের সভাপতি এ কে এম রাকিবুল ইসলাম রিপন, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় নেতা মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

‘ইউরোপে যে টিকা ২ ডলার, আমরা কিনছি ৫ ডলারে’

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের কথা উল্লেখ করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, ‘বাংলাদেশ একটি প্রতারণার স্বর্গরাজ্য, লুটপাটের স্বর্গরাজ্য। করোনার প্রতিষেধক ভ্যাকসিন ইউরোপে যেখানে দুই ডলার, আমাদের এখানে সাড়ে চার ডালার বা পাঁচ ডলার। ভ্যাকসিন উৎপাদনে ব্যয় খুব কম। যদি এক ডলার দাম হয় তাহলে ৪০ টাকা লাভ হবে।’

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভ্যাকসিনের দাম যদি দুই ডলার হয়, তাহলে আমাদের এখানে পাঁচ ডলার কেন- এমন প্রশ্ন রেখে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘কারণ আমরা চুরি করি, দুর্নীতি করি। সেই কারণে ভ্যাকসিনের দাম বাড়ছে।’

জনগণই দেশের মালিক উল্লেখ করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, ‘আজ সবাইকে উপলব্ধি করতে হবে কেন আমি ভোট দেব? কেন আমারা ভোট চাই? এই দেশের মালিক আমরা। আমরা সবাই মিলে এই দেশের মালিক। তাই যদি হয় তাহলে দেশের পরিচালনায়, শাসনে আমাদের বক্তব্য রাখার অধিকার থাকতে হবে। সমালোচনা করার অধিকার থাকতে হবে। জবাবদিহি করার অধিকার থাকতে হবে।’

ডা. জাফরুল্লাহ আরো বলেন, আমাদের সংগ্রাম অব্যাহত করা ছাড়া মুক্তির উপায় নাই। বাংলাদেশের গণতন্ত্র না আসার একমাত্র কারণ আওয়ামী লীগ নয়; বিরোধী দলও সমভাবে দায়ী।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2016-2021 BanglarProtidin
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451