রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০১:১০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
নাটোরের লালপুরে ‘ইমো হ্যাকিং চক্রের’ ৭ সদস্য গ্রেপ্তার জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, শ্রম মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের ঘোষণা! দুবাই যেতে পারছেন না পোশাক ডিজাইন উরফি! ব্রাজিলের বড় তারকা নেইমারের বিশ্বকাপ শেষ? নড়াইলের ইউপি চেয়ারম্যানের ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল, সমালোচনার ঝড় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গি ছিনতাইয়ের ঘটনায় একজন গ্রেপ্তার আমি বুলেটপ্রুফ, লোহার পোশাক পরে আছি : ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে মুঈনুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনে থেকে মহা গ্রন্থ পাগড়ী ও সন্মাননা স্মারক প্রদান এদেশে নির্বাচন নিয়ে আর কোনো খেলা হবে না, বিএনপির সমাবেশে বলেন ‘ ফখরুল ‘দুর্বল’ ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২২ জনের করোনা শনাক্ত

 গুরুদাসপুরে সাংসদের বাসভবনে হামলা নাটকের গোমড় ফাঁস  

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট, ২০১৬
  • ১৫২ বার পড়া হয়েছে

 

 

 

গুরুদাসপুর প্রতিনিধি.

 

সাবেক প্রতিমন্ত্রী, গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম আসনের সাংসদ ও নাটোর জেলা আ’লীগ সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস চিকিৎসার কারণে বিদেশ থাকার সুযোগে ৬ জুলাই তাঁর বাসভবনে হামলা করার সাজানো নাটকের গোমড় ফাঁস হয়ে গেছে।

 

পুলিশ ও স্থানিয় সুত্র জানায়, স্থানিয়

 

সাংসদ আব্দুল কুদ্দুসের বাসার কেয়ারটেকার গুরুদাসপুর উপজেলার খুবজীপুর গ্রামের রমজান আলীর ছেলে মিলন (৩০) ও বড়াইগ্রাম উপজেলার চান্দাই গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে রবিউল (২০) প্রায় দেড়মাস যাবৎ বাসার কেয়ারটেকার ও সিকিউরিটি গার্ডের দায়িত্ব পালন করে আসছিল। ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী কেয়ারটেকার মিলন ওই বাসভবনে অবস্থান করে সাংসদের অনুউপস্থিতি  তিতে বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত হয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে ৬ জুলাই শনিবার গভীর রাতে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ওই বাসার ক্ষতিসাধনের লক্ষ্যে উভয়ে যোগসাজস করে চোর চোর বলে চিৎকার করতে থাকে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে না পেয়ে সিকিউরিটি গার্ড রবিউলকে অসুস্ত ভেবে ওই রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে দেয়। হাসপাতালে ভর্তি থাকাকালীন সে সাংবাদিকদের জানায় তিনজন দূর্বৃত্ত তার ওপর হামলা চালায়। কিন্তু ওই বাসার কেয়ারটেকার মিলনকে পুলিশি হেফাজতে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে হামলা ঘটনার সমস্ত অভ্যন্তরীন গোমড় ফাঁস হয়ে যায়।

 

এ প্রসঙ্গে গুরুদাসপুর থানার ওসি দিলীপ কুমার দাস জানান, সাংসদের বাসার কেয়ারটেকার গ্রেফতারকৃত মিলন ওই ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী বলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে এবং সিকিউরিটি গার্ড রবিউলের দেয়া বর্ণনা সম্পূর্ণ মিথ্যা। হামলার ঘটনা সত্য না।

 

এদিকে গুরুদাসপুর উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী বলেন, আমরা শুনেছি ইতিপূর্বেও এমপি সাহেবের বাসা থেকে ৫৫ লাখ টাকা হারিয়ে গেছে এবং পরপর এ ধরণের অনেক ঘটনাই ঘটেছে তাঁর বাসায়। আমি মনে করি সেদিনের হামলা নাটকের মধ্যদিয়ে প্রতপক্ষ হিসেবে এমপি সাহেবের লোকজন আমাদেরকে ফাঁসানো জন্য বারবার এধরণের ঘটনা ঘটা”েছ।

 

এ ব্যাপারে ¯’ানীয় সাংসদ কুদ্দুস দেশের বাইরে থাকার কারণে তাঁর বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451