শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন

ইসি’র প্রতিনিধিরা ফ্রান্সে যাচ্ছেন

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৯ জুন, ২০১৬
  • ২০২ বার পড়া হয়েছে

ঢাকা: বহুল কাঙ্খিত স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নির্দিষ্ট সময়ে সরবরাহ করা নিয়ে দাতা সংস্থা বিশ্বব্যাংকের শঙ্কা প্রকাশের পর নড়ে চড়ে বসেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তাই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের গলদ খুঁজতে একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন প্রতিনিধি দলকে ফ্রান্সে পাঠাচ্ছে সংস্থাটি।

স্মার্টকার্ড বা উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্র প্রস্তুত করে দেওয়ার জন্য ফ্রান্সের অবার্থার টেকনলোজিস নামের একটি কোম্পানিকে কাজ দিয়েছে ইসি। এজন্য কোম্পানিটির সঙ্গে গত বছরের ১৪ জানুয়ারি ১৮ মাসের মধ্যে ৯০ মিলিয়ন বা ০৯ কোটি স্মার্টকার্ড প্রস্তুত করে দেওয়ার চুক্তিও করেছে নির্বাচন কমিশন।

কিন্তু এক বছরের বেশি সময় পার হয়ে গেলেও কাজের তেমন কোনো অগ্রগতি হয়নি। ফলে গত ১১ ও ১২ মে বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিসে রিভিউ মিটিংয়ে ২০১৭ সালের মধ্যে স্মার্টকার্ড বিতরণ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করা হয়।

ওই বৈঠকের কার্যপত্র থেকে জানা গেছে, এতে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি), ইসি, এনআইডি (আইডিইএ) প্রকল্প ও বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে আলোচনা হয়, ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত স্মার্ট এনআইডি সরবরাহ শুরু হয়নি। তাই যথাসময়ে কার্ড বিতরণ নিয়ে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বৈঠকের পর ইসি সচিবকে এক চিঠিতে অবশিষ্ট সময়ের মধ্যে কার্ড প্রস্তুত ও বিতরণের জন্য জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিতে বলে ইআরডি।
এদিকে বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিনিধি দলও আইডিইএ (স্মার্টকার্ড) প্রকল্প পরিদর্শনে ৮ জুন বাংলাদেশে এসেছে। তারা ১৬ জুন পর্যন্ত দেশে অবস্থান করে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে কয়েক দফা বৈঠক করবে।

এ অবস্থায় ইসির এনআইডি অনুবিভাগ থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের গলদ খুঁজতে এবং কার্ড তৈরিতে বিলম্বের কারণ জানতে ফ্রান্স সফরের প্রস্তাবনা দেওয়া হয় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদকে।

গত ০৮ জুন সিইসি’র কাছে পাঠানো ওই প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, চুক্তি অনুযায়ী ৯০ মিলিয়ন কার্ড পর্যায়ক্রমে অবার্থার টেকনোলজিসের কাছ থেকে সংগ্রহ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে কার্ড প্রস্তুত ও বিতরণের জন্য নির্ধারিত সময়সূচি কিছুটা বিলম্বিত হয়েছে। যা সমন্বয়ের জন্য সরেজমিনে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সার্বিক প্রস্তুতি ও আইডি কার্ড উৎপাদন কার্যক্রম পরিদর্শন করা প্রয়োজন।

এজন্য সিইসিকে প্রধান করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দল গঠন করে তাতে সদস্য হিসেবে ইসি সচিব ও স্মার্টকার্ড প্রকল্প পরিচালককে রাখার প্রস্তাব করে এনআইডি অনুবিভাগ। তবে সিইসি বৃহস্পতিবার (০৯ জুন) ইসি’র সচিব সিরাজুল ইসলাম ও প্রকল্প পরিচালক সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দীনকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে অনুমোদন দেন।

এক্ষেত্রে আগামী ১৭ জুন থেকে ২৪ জুন পর্যন্ত ‘উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন’ এ প্রতিনিধি দলটি ফ্রান্সে অবস্থান করবে।

ইতোমধ্যে ফ্রান্স সফরের ভিসা প্রদানের জন্য সেদেশের দূতাবাসে নোট ভারবাল পাঠাতেও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিবকে নির্দেশ দিয়েছে ইসি।
সংস্থাটির বিশ্বস্ত সূত্রগুলো বাংলানিউজকে জানিয়েছে, স্মার্টকার্ড উৎপাদন প্রায় চার মাস বন্ধ ছিল।

২০১১ সালে বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় দেশের নাগরিকদের স্মার্টকার্ড সরবরাহের জন্য আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর অ্যানহেন্সিং অ্যাকসেস টু সার্ভিস (আইডিইএ) প্রকল্পটি হাতে নেয় ইসি। যার মেয়াদ কয়েক দফা বাড়িয়ে ২০১৭ পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451