বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০২:০৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

ঝালকাঠি যুব মহিলা লীগের কমিটি নিয়ে বিরোধের জের সভানেত্রী লুনার উপর প্রতিপক্ষ কেকা গ্রুপের হামলা

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই, ২০১৬
  • ১৭৮ বার পড়া হয়েছে

ঝালকাঠি সংবাদদাতাঃ- ঝালকাঠি জেলা যুব মহিলা লীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন নিয়ে মতোবিরোধের জের জেলা সভানেত্রী লুৎফুন্নাহার লুনার উপর প্রতিপক্ষ বরিশাল যুবমহিলা লীগের সাধারন সম্পাদক ও জেলা আ’লীগ সদস্য শারমীন মৌসুমি কেকা গ্রুপ হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শহরের কুমারপট্টি এলাকায় লুনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান লেডিস কর্নারে অব¯’ান কালে এ হামলা ও তাকে লাঞ্চিত করা ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগে জানাগেছে। রবিবার রাত্র ৯ টায় শহরের গুরুত্বপূর্ন ব্যবসায়িক এলাকায় একই দলে ২০/২৫ জন যুবতী ও যুবকের এ হামলার ঘটনায় চাপা উত্তেজনা সৃষ্টি হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়।।

      এ ব্যাপারে হামলার শিকার জেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী লুৎফুন্নাহার লুনা জানায়, বিগত ২০১৫ সালের জানুয়ারী মাসে ঝালকাঠি যুব মহিলা লীগে তাকে সভাপতি ও  বাবলি আক্তার মদিনাকে সাধারন সম্পাদক ঘোষনা করে তাদের পূর্নঙ্গ কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয়া হয়। পরবর্তীতে বিভিন্ন কারনে ও ¯’ানীয় সরকার নির্বাচনের কারনে পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষে সাংগঠনিক নেতাকর্মীদের সাথে আলাপ করে একটি খসরা কমিটি করা হয়। সম্প্রতি তিনি ঢাকা সফর কালে যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় সভানেত্রী নাজমা রহমানের সাথে দেখা করে জেলা কমিটির খসড়া দেখালে তিনি ঝালকাঠি-২ আসনের সংসদ সদস্য শিল্পমন্ত্রি আমির হোসেন আমুর সাথে আলাচনা করে কমিটি পূর্নাঙ্গ কমিটি চুরান্ত করার পরামর্শ দেন ও কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক অপু উকিলের সাথে দেখা করতে বললে তিনিও একই পরামর্শ দেয়ায় তিনি ঝালকাঠিতে ফিরে আসেন। এ ঘটনা জানতে পেরে গত শনিবার বরিশাল যুবমহিলা লীগের সাধারন সম্পাদক শারমীন মৌসুমি কেকা তাকে সেলফোনে কল দিয়ে নানারকম হুমকি-ধূমকি দেয়। রবিবার রাতে তিনি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অব¯’ান কালে হঠাৎ করে ৩টি অটোরিক্সায় যুবমহিলা লীগের মদিনা, ববি, রাখি, রুবি ও যুবলীগের কিছু নেতাকর্মী সহ প্রায় ২০/২৫ জন আমার দোকানে হানা দিয়ে অকথ্য গালাগাল ও হুমকি-ধূমকি দেয়। এ সময় তাদের বারবার অনুরোধ সত্বেও  দোকানের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও নাজেহাল করায় আমি তাৎক্ষনিক আমাদের নেতা শিল্পমন্ত্রি আমির হোসেন আমুকে জানালে তিনি অন্যান্য নেতৃবৃন্দকে জানাতে বলেন। পরে যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় সভানেত্রী-সাধারন সম্পাদক, ঝালকাঠি জেলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী-সাধারন সম্পাদক নেতৃবৃন্দকে বিষয়টি অবগত করেছি।
অন্যদিকে বরিশাল যুবমহিলা লীগের সাধারন সম্পাদক শারমীন মৌসুমি কেকা তার নির্দেশে উক্ত হামলা ও গালাগালের ঘটনা অস্বীকার করে সাংবাদিকদের জানান, দলের ত্যাগি নেতাদের না জানিয়ে ও কারো সাথে আলাপ আলোচনা না করে লুনা তার নিজেস্ব লোকজন নিয়ে জেলা যুবমহিলা লীগের কমিটি অনুমোদন করতে ঢাকা যায়। এ সংবাদ জানতে পেরে জেলা যুবমহিলা লীগের নেতা-কর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে লুনার দোকানে গিয়ে লুনাকে লাঞ্চিত করে। তবে তিনি বিষয়টি উর্দ্ধতন নেতাদের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী ব্যব¯’া নেবেন।
 

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451