বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৬:১৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

এখন শর্ত দেওয়া বা কাদা ছোড়াছুড়ির সময় নয়- মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় বুধবার, ৬ জুলাই, ২০১৬
  • ২৬৪ বার পড়া হয়েছে

ঢাকা ঃ সন্ত্রাস-জঙ্গি দমনে দাম্ভিকতা বাদ দিয়ে ও দলীয় সংকীর্নতার উর্ধ্বে উঠে জাতীয় ঐক্য গঠনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আহ্বানে সাড়া দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর । জাতীয় ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এখন শর্ত দেওয়া বা কাদা ছোড়াছুড়ির সময় নয়। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। দলীয় সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। ক্ষমতাসীনদেরই এই ঐক্য গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া উচিত।
মঙ্গলবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গুলশান হত্যাকা- নিয়ে দলের কর্মসূচি ঘোষণার সময় এ কথা বলেন।
গুলশান হত্যাকা- স্মরণে ১২ জুলাই দলীয়ভাবে শোক দিবস পালন করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। ওই দিন মহানগর ও জেলায় শোক মিছিল করবে দলটি।
মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমানে দেশের মানুষ ভাল নেই। গুলশানে হামলার ঘটনায় সমগ্র জাতিকে স্তম্ভিত ও আতংকিত করেছে। এ বিষয়ে আমাদের দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বক্তব্য দিয়েছেন। তার কথার সুরে সুর মিলিয়ে আমি বলতে চাই এখন সবচেয়ে যে জিনিসটি বেশি প্রয়োজন তা হল ভয়াবহ সন্ত্রাস ও উগ্রবাদকে প্রতিরোধ করার জন্য জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা উচিত।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া তার বক্তব্য সে জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন। আমাদের বিশ্বাস তার এ আহ্বান সমগ্র দেশের মানুষকে আশাবাদী করে তুলেছে। শুধু দেশের মানুষ নয় আন্তর্জাতিক পর্যায়েও তার এ বক্তব্য অত্যন্ত গ্রহণযোগ্য হয়েছে। আমরা আশা করবো সরকার এবং সরকারি দল তারা তাদের আত্মভরিতা বাদ দিয়ে এবং দলীয় সংকীর্নতার উর্ধ্বে উঠে দেশের স্বার্থে ও বৃহত্তর কল্যাণে তার এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করার ক্ষেত্রে তারা উদ্যোগ নিবে।
বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকারকেই উদ্যেগ গ্রহণ করতে হবে। কারন তারা সরকারে রয়েছে। দায়িত্বটা তাদের। আজকে যা কিছু ঘটেছে তার সম্পূর্ণ দায়-দায়িত্ব তাদের। ব্যর্থতা ও প্রাণহানির দায়িত্বও তাদের। তাদের ব্যর্থতার কারনেই এ ভয়াবহ অমানবিক ঘটনা ঘটেছে।
তিনি আরো বলেন, আমরা আশা করেছিলাম খালেদা জিয়ার বক্তব্যের পরে সরকারি দলের কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়া পাব। কিন্তু দুঃখ জনক ভাবে আমরা লক্ষ্য করছি সরকারি দলের উচ্চ পর্যায়ের কিছু নেতৃত্ব ভিন্নভাবে এ বিষয়টিকে ব্যাখ্যা করছেন, শর্ত জুড়ে দিচ্ছেন। এখানে শর্ত দেওয়ার কোনো প্রশ্ন থাকতে পারে না। সমগ্রজাতিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আজ যে ভয়াবহ দানব জেগে উঠেছে দেশও মানুষের স্বার্থে ভয়াবহ দানবকে পরাভূত করতে হবে।
দলমত নির্বিশেষে সকলকে জাতীয় ঐক্যর আহ্বান জানিয়ে ফখরুল বলেন, ১৯৭১ সালে যে চেতনা নিয়ে সমগ্র জাতি ঐক্যবদ্ধ হয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধ করেছিল; সে একই ভাবে সমগ্র জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস প্রতিরোধের সংগ্রামে অংশগ্রহণ করতে হবে।
সরকারকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা মনে করি এখন সময় কাদাছোড়াছুড়ি ও দলাদলির নয়। দলমত নির্বিশেষে বেগম খালেদা জিয়া যে আহ্বান জানিয়েছেন সে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা বেশি জরুরি।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ দপ্তর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন, ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী, যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা গিয়াস উদ্দিন মামুন প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451