শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১২:০৪ অপরাহ্ন

এমপি লিটনকে যারা হত্যা করেছে তাদেরকে চরম মূল্য দিতে হবে

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৮ জানুয়ারী, ২০১৭
  • ১৫৮ বার পড়া হয়েছে

 

 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

এমপি বলেন, এমপি লিটনকে যারা হত্যা করেছে, তাদেরকে চরম মূল্য দিতে

হবে। প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন যারা লিটনকে হত্যা করেছে, তাদেরকে

আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। প্রকৃত

হত্যাকারিদের আড়াল করার কোন প্রচেষ্টাই সফল হবে না। কেউ বা কোন মহল

যদি লিটনের হত্যাকারিকে আড়াল করতে চায়, ধোঁয়াশা সৃষ্টি করতে চায়,

তাদের সে আশা কোনদিন পূর্ণ হবে না। শেখ হাসিনা যদি জীবিত

থাকেন তবে লিটন হত্যাকারিদের বিচার হবেই হবে।

গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম

লিটন স্মরণে সুন্দরগঞ্জ ডি ডাবিউ ডিগ্রী কলেজ মাঠে শনিবার বিকাল

৩টায় অনুষ্ঠিত নাগরিক শোক সভায় সুন্দরগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি

গোলাম মোস্তফা আহমেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে

গিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

এই নাগরিক শোক সভায় মন্ত্রী আরও বলেন, এই হত্যাকান্ড আমাদের সরকার ও

আওয়ামী লীগের চেতনায় আঘাত হেনেছে। সুতরাং এই হত্যাকান্ডকে

অত্যান্ত গুরুত্ব সহকারেই দেখা হচ্ছে। সুন্দরগঞ্জ আসনের জাতীয় সংসদ

সদস্যের উপ-নির্বাচনের মনোনয়ন নিয়ে কাড়াকাড়ি করবেন না, শেখ

হাসিনা যাকে চাইবেন, সুন্দরগঞ্জের মানুষ যাকে চাইবে সেই মনোনয়ন

পাবে। এই নিয়ে দলের মধ্যে কোন কোলহল সৃষ্টি করবেন না। আওয়ামী লীগ

নেত্রী শেখ হাসিনা সুন্দরগঞ্জের মানুষের পাশে আছে এবং থাকবে। তিনি

বলেন, উত্তরবঙ্গ থেকে স্বাধীনতা সংগ্রামের বিশাল আন্দোলন গড়ে ওঠে ছিল।

তার ফলে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে সফল মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে।

এ কারণে মানুষের কল্যাণ ও উন্নয়নে এ সরকার সর্বাধিক গুরুত্বারোপ

করেছেন।

এই নাগরিক শোক সভাতে সর্বস্তরের বিপুল সংখ্যক মানুষ অংশ গ্রহণ

করে। ফলে সুন্দরগঞ্জের ডি ডাবিউ ডিগ্রী কলেজের বিশাল মাঠটি এক

জনসমুদ্রে পরিণত হয়। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ

কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম হানিফ এমপি,

জাহাঙ্গীর কবির নানক, বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, জাতীয়

সংসদের ডেপুটি ¯পীকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাববী মিয়া, হুইপ মাহাবুব

আরা বেগম গিনি, রংপুর বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম

মোজাম্মেল হক এমপি, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, আ.ফ.ম. বাহ উদ্দিন

নাছিম এমপি, অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ এমপি, ডাঃ ইউনুস আলী সরকার

এমপি, এইচএম আশিকুর রহমান এমপি, টিপু মুন্সি এমপি, অ্যাড. উম্মে

কুলসুম স্মৃতি এমপি, রংপুর সিটি করর্পোরেশনের মেয়র শরিফ উদ্দিন

আহমেদ ঝন্টু, জেলা আ’লীগ সভাপতি অ্যাড. সৈয়দ-শামস- উল আলম হিরু,

সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক, প্রয়াত মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন এমপি’র

স্ত্রী সৈয়দা খুরশিদ জাহান স্মৃতি, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর

রহমান সোহাগ, সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন প্রমুখ।

পরে মন্ত্রী ও অন্যান্য আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ লিটনের বাড়িতে গিয়ে

প্রয়াত লিটনের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন এবং তার রূহের মাগফেরাত

কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন।

পলাশবাড়িতে পথসভা ও শীতবস্ত্র বিতরণ ঃ

বগুড়া থেকে গাইবান্ধায় আসার পথে এর আগে সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল

কাদের এমপি পলাশবাড়ি উপজেলা সদরের রংপুর-বগুড়া মহাসড়ের চৌমাথা

মোড়ে এক পথসভায় বক্তব্য রাখেন এবং শীতার্ত দুঃস্থদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর

তহবিল থেকে ১ হাজার ১শ’ পরিবারের মধ্যে কম্বল বিতরণ করেন। এসময় মন্ত্রী

বলেন, সরকারের ও দলের যারা ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর

ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি আরও বলেন সরকারের উন্নয়নকে তলে তলে

খেয়ে ফেলছে কিছু লোক, এদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। উপজেলা আওয়ামী

লীগের উদ্যোগে শনিবার আয়োজিত এই পথসভা ও শীতবস্ত্র বিতরণ

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু বকর

প্রধান। এসময় উপস্থিত ছিলেন পলাশবাড়ি-সাদুল্যাপুর আসনের এমপি ডাঃ

ইউনুস আলী সরকার, অ্যাডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি,

পলাশবাড়ি উপজেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক সামিকুল ইসলাম লিপনসহ

আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় নেতাকর্মীরা

উপস্থিত ছিলেন।

সার্কিট হাউসে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য ঃ

পলাশবাড়ি থেকে সার্কিট হাউসে এসেই সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল

কাদের এমপি উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখতে গিয়ে ঢাকার

এলেঙ্গা থেকে রংপুর পর্যন্ত মহাসড়কটি ফোর লেনে উন্নীত করা হচ্ছে।

এছাড়া বালাসীঘাট দিয়ে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা অব্যাহত রাখার যে

পরিকল্পনা সরকার ইতোপূর্বে গ্রহণ করেছে তা অচিরেই বাস্তবায়িত

হবে। তদুপরি বালাসী থেকে বাহাদুরাবাদঘাট পর্যন্ত ব্রহ্মপুত্র নদে একটি

সেতু নির্মাণেরও মহা পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে বলে তিনি উলেখ করেন।

তিনি যুবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ইয়াবাসহ সকল মাদককে দুরে থাকতে হবে।

এমনকি মাদক প্রতিরোধে আইন শৃংখলা বাহিনীর পাশাপাশি সর্বস্তরের

মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। পরে সার্কিট হাউসে নেতাকর্মীদের

সাথে মতবিনিময় করেন।

 

শেখ হুমায়ুন হক্কানী গাইবান্ধা থেকে ঃ

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451