শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১২:৩৫ অপরাহ্ন

তালায় চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করায় হামলা , মামলা নিতে পুলিশের গড়িমসি

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় রবিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ১১২ বার পড়া হয়েছে

 

 

 

 
সেলিম হায়দার,তালা

চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করায় সাতক্ষীরার তালা উপজেলার জাতপুর বাজারের মেসার্স

চৌধুরী হামিদা অটো প্রসেসিং (অটো রাইচ মিল) নামে একটি চাউলে মিলে হামলা

করেছে দূবৃর্ত্তরা। এসময় স্থানীয় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় পুলিশ একজনকে আটক

করেছে।

শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে জাতপুর বাজারের ব্যবসায়ী প্রতিষ্টান

মেসার্স চৌধুরী হামিদা অটো প্রসেসিং নামে চাউলের মিলে এ হামলার ঘটনা

ঘটে। এ সময় প্রতিষ্ঠানটির মালিকের ভাইয়ের ছেলে আব্দুল্লাহ আল মামুনকে পিটিয়ে

রক্তাত্ব জখম করে তারা। ওই রাতে মেসার্স চৌধুরী হামিদা অটো প্রসেসিং-এর মালিক

অশিউর রহমান চৌধুরী বাদী হয়ে ঘটনার হুকুমদাতাসহ ৬ জনের নামে তালা থানায়

এজাহার দাখিল করেন।

অভিযুক্তরা হলেন- তালা উপজেলার আলাদীপুর গ্রামের ছবেদ মোড়লের ছেলে মো. মোসলেম

উদ্দীন (৫২), জোহর আলী মোড়লের ছেলে সাদ্দাম মোড়ল (৩০), আলাউদ্দীন সরদারের ছেলে মো.

হেলাল সরদার (২৮), সাহবুদ্দীন সরদারের ছেলে ইমরান সরদার (২৫), আনার মোড়লের ছেলে

আলমগীর মোড়ল ( ৩৫) ও কাশেম সরদারের ছেলে নাজমুল সরদার (২৭)। এদের নাম উল্লেখ করে

থানায় এজাহার দাখিল করলেও পুলিশ মামলা নিতে গড়িমসি করছে বলে অভিযোগ করেছেন

তিনি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানাগেছে, মেসার্স চৌধুরী হামিদা অটো প্রসেসিং

নামে চাউলের মিলটি গত দুই বছর ধরে জাতপুর বাজারে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

ব্যবসা চালুর পর থেকে উক্ত আসামীরা বিভিন্ন সময়ে তাদের কাছে চাঁদা দাবী করে

আসছিল। কিন্তু চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় ২ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে

মোসলেম উদ্দীনের হুকুমে তাদের প্রতিষ্টানে হামলা করা হয়। এসময় আব্দুল্লাহ আল মামুন

নামে একজনকে লোহার রড দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে জখম করে তারা। এসময় ক্যাশ বাক্স

ভেঙ্গে নগদ দুই লক্ষ টাকা নেয় এবং যাওয়ার সময় আরও পাঁচ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে।

মামলার বাদী অশিউর রহমান বলেন,‘থানায় মামলার এজাহার জমা দেওয়া হয়েছে। পুলিশ

মামলা নিতে গড়িমসি করছে। তবে একজনকে এলাকাবাসির সহযোগিতায় আটক

করছে পুলিশ।

অভিযুক্ত মোসলেম উদ্দীন জানান, বাজারে একটি ঘটনা ঘটেছে। ঘটনায় একজন আটক

আছে। বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান মিমাংসা করার চেষ্টা করছেন। আশাকরি বিষয়টি

মীমাংসা হয়ে যাবে।

তালা থানার উপ-পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান মামলার এজাহার পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে

বলেন, থানায় একজন আটক আছে। তবে এখনও মামলা রেকর্ড হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451