রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৬:২৭ পূর্বাহ্ন

দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলে থামছে না চোরাচালান টার্গেট ঈদ ও পূজা

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৬
  • ১২৭ বার পড়া হয়েছে

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট অফিস : কোনভাবেই থামছে না চোরাচালান। প্রায় প্রতিদিনই কোন না কোনভাবে ভারতীয় শাড়ি, থ্রিপিচ, স্যুটিং-শার্টিংসহ বিভিন্ন মালামাল বাগেরহাট আসছে।দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলে ১১টি জেলার  ইউনিয়নের ও পৌর সভা ও প্রত্যেকটি বাজারে চলছে ভারতীয় শাড়ি, থ্রিপিচ, স্যুটিং-শার্টিংসহ বিভিন্ন মালামাল এর জমজমাট ব্যাবসা। ফলে পৌর সদরসহ এ বৃহৎ উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে গড়ে উঠেছে শতাধিক দোকান।
সাতক্ষীরা ও বেনাপোল থেকে চোরাই পথে এসকল মালামাল আসছে। আগামী সেপ্টেম্বরে পবিত্র ঈদুল আযহা ও অক্টোবরে শারদীয় দুর্গোৎসবকে টার্গেট করে চোরাচালানীরা তাদের চোরা কারবার আগেভাগেই শুরু হয়েছে। গত শুক্রবার খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার শিয়ালগাতি ব্রিজ থেকে ৫০লাখ টাকার ভারতীয় শাড়ি, থ্রিপিচ ও থান কাপড় উদ্ধার করা হয়। কোস্টগার্ড ও কাস্টমস যৌথ অভিযান চালিয়ে ওই কাপড় উদ্ধার করে। তবে বরাবরের মত চোরাচালানীরা থেকে গেছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। বিপুল পরিমাণ শাড়ি, থ্রিপিচ এবং হাজার হাজার মিটার থান কাপড় ধরা পড়লেও কোন লোক ধরা পড়ছে না। চোরাচালানীরা ধরা না পড়ায় তাদের শাস্তি হচ্ছে না। ফলে তারা একের পর এক ঝুঁকি নিচ্ছে ভারতীয় কাপড় চোরাচালানের জন্য। কখনো চোরাচালানীরা সফল হচ্ছে। আবার কখনও ব্যর্থ হচ্ছে। কোস্টগার্ড সদস্যরা অভিযান চালিয়ে মালামাল জব্দ করে চোরাচালানীদের ব্যর্থ করে দিচ্ছে। আর এভাবেই চলছে চোরাকারবারীদের ভারতীয় মালামাল পাচারের প্রক্রিয়া। সাতক্ষীরার ভোমরা এলাকা থেকে অবৈধভাবে নিয়ে আসা শাড়ি, থ্রিপিচসহ বিভিন্ন মালামাল রূপসা সেতু পার হয়ে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচার করা হয়। তবে অবাক করা বিষয় সাতক্ষীরা থেকে অবৈধ মালামালগুলো খুলনার  রূপসা সেতুর টোল প্লাজা এলাকায়  কোস্টগার্ড সদস্যদের হাতে ধরা পড়ছে। তাহলে পথের বিভিন্ন  স্থানে চেকপোস্ট ও পুলিশের তল্লাশি কিভাবে নজর এড়িয়ে যায়। না কি এর পিছনে অন্য কিছু রয়েছে। এ প্রশ্ন ওঠার যথেষ্ট যৌক্তিক কারণ রয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত ১৬এপ্রিল ভোরে কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের সিজি স্টেশন রূপসার একটি টহল দল রূপসা ব্রীজ সংলগ্ন  টোল প্লাজা  এলাকা হতে অবৈধ ভারতীয় ৯৪৬ সেট থ্রী পিচ, ৭টি সেরওয়ানী, ১৮৮টি পাঞ্জাবি এবং ৪হাজার ৭০ মিটার থান কাপড় উদ্ধার করে । উদ্ধারকৃত কাপড়ের আনুমানিক মূল্য ৪৫লাখ ৩০হাজার টাকা, ২১ এপ্রিল দিবাগত গভীর রাতে এক কোটি টাকার ভারতীয় বিভিন্ন ধরনের কাপড় ও ২০০পিচ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এসময় পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। তবে ট্রাকসহ চালক শহীদুল ইসলাম নামে এজনকে আটক করা হয়, ৩০ এপ্রিল  দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে  দেড় কোটি টাকার বিভিন্ন ধরনের ভারতীয় কাপড় উদ্ধার করে কোস্টগার্ড। কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের সিজি ষ্টেশন রূপসার টহল দল একটি কাভার্ড ভ্যান তল্ল¬াশি করে অবৈধভাবে আনা ভারতীয় শাড়ি, বিলাস বহুল থ্রি পিস, প্যান্ট পিস, শার্ট পিস, থান কাপড়, ও স্টীল সামগ্রী এবং অন্যান্য ভারতীয় অবৈধ দ্রব্যসামগ্রী উদ্ধার করে, গত ৬মে  টোল প¬াজা  এলাকা হতে অবৈধ ভারতীয় ৮০টি থ্রীপিচ,  ২হাজার ৭৬৭ মিটার থান কাপড় এবং ১ টি মাহেন্দ্র আটক করে কোস্টগার্ড। উদ্ধারকৃত কাপড়রে মূল্য ২১ লাখ ৮৩ হাজার ৫০০টাকা বলে জানায় কোস্টগার্ড। সবমিলে ৩ কোটি ১৭লাখ ১৩হাজার ৫০০ টাকার ভারতীয় বিভিন্ন  মালামাল উদ্ধার করে কোস্টগার্ড।

তবে কোস্ট গার্ডের একটি সূত্র বলছে, চোরাচালানীদের মালামাল উদ্ধার ও তাদের গ্রেফতারে তারা সবসময় সতর্ক রয়েছেন। চোরাকারবারীদের কোন ছাড় দেয়া হবে না বলেও জানায় ওই সূত্র।। ##

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451