বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪, ০৪:৪৪ অপরাহ্ন

    লালপুরের ঐতিহ্যবাহি নান্দ-রায়াপুরের বিষহরিতলার শ্রী শ্রী মনসা দেবীর পূজা উদযাপিত  

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় শনিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৬
  • ২৭৯ বার পড়া হয়েছে

মোঃ আশিকুর রহমান (টুটুল),নাটোর Monoa 012  প্রতিনিধি,

নাটোরের  লালপুর উপজেলা  নান্দ-রায়াপুরের,বিষহরিতলার ঐতিহ্যবাহি তিন দিন ব্যাপি শ্রী শ্রী মনসা দেবীর

পূজা উদযাপিত হয়েছে । প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও বুধবার (১৭আগষ্ট) দিবাগত রাত্রি থেকে মহা ধুমধামের সহিত পালিত হ”েছ হিন্দু সম্প্রদায়ের  এক অন্যতম উৎসব  মনসা দেবীর পূজা  ।  ¯’ানীয় সূত্রে জানাযায়-হাজার বছর ধরে পালিত হয়ে আসছে এই ঐতিহ্যবাহি বিষহরি তলার শ্রী শ্রী মনসা দেবীর পূজা ।প্রতিবছর শ্রাবন সংক্রান্তিতে মহা ধুম ধামে পালিত হয়ে আসে এই মনসা দেবীর পূজা । এই মনসা দেবীর পূজা উপভোগ করতে দেশের বিভিন্ন ¯’ান  থেকে ছুটে আসে হাজারো উৎসুক জনতাও  ভক্ত গন ।  গ্রামের বিশিষ্ট ও গুনি জনদের থেকে জানাযায়-এই এই মনসা দেবীর পূজা তাদের পূর্ব পুর”ষ ও একই ভাবে পালন হতে দেখেছেন । যেখানে জমে হাজারো মানুষের সমগম । তারা আরাধনা  করে মনসা দেবীর কাছে। মা মনসা দেবীর পূজা উপভোগ করতে যেমন দেশের বিভিন্ন ¯’ান  থেকে ছুটে এসেছে হাজারো ভক্ত ও উৎসুক জনাতা তেমনি আগত উৎসুক জনতাদের আনান্দ বৃদ্ধি ও তাদের বিভিন্ন চাহিদা মেটাতে মেলায় বসেছে হরেক রকম খাবার ও প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র ও শিশুদের মনো মুগ্ধকর খেলনা দোকান সেই সাথে মেলায়  এসেছে নাগরদোলা । সব মিলিয়ে প্রত্যান্ত অঞ্চল নান্দ রায়াপুর এখোন হাজারো লোকের সমগমে  উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে ।  পূজা মন্ডোবের শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষাতে নিয়জিত রয়েছে  পুলিশ, গ্রাম পুলিশও আনসার বাহিনির  কঠোর নজরদারী । যেভাবে মনসা দেবীর পূজার শুর” হয় ঃ- ¯’ানীয় সূত্রে -অনেকদিন আগের কথা । নান্দ গ্রামে একদা এক অলৌকিক নারী আবির্ভুত হয়  এব সে  প্রতিবেশী গ্রামে প্রচার করে যে“বেলী পুকুর পাড়ে আগামী শ্রাবণ সংক্রান্তিতে বিষহরি(মনসা) দেবীর পূজা” বেলী পুকুর বলতে নাটোর জেলার অন্তরর্গত লালপুর উপজেলাধীন  নান্দ গ্রামের পূর্ব সিমান্তে হোসেন পুর গ্রাম সংলগ্ন একটি বড় পুকুরকে বুঝানো হয়েছে। সেখানে যে বসতি ছিল তার প্রমাণ এখনো মেলে । কতিথো আছে ঐ আলৌকিক নারী গ্রামের পুরহিতদের পূজা জোগাড় করতে বলেছিল । নতুবা তাদের অমঙ্গল হবে, এই কথা শুনে তারাতো অবাক,কি আর করবে, সাপের ভয় সবারি আছে। কারণ মনসা মূলত অষ্টনাগের দেবী ।এছাড়া চাঁদ সওদাগর কর”ন পরিণতির কথা ও লক্ষীন্দরের সাপের দংশনে  বেহুলার ভাগ্য বিরম্বনার কথা কমবেশী অনেকেরই জানা । তাই শেষ পর্যন্ত যার যার  মতো শ্রাবণ সংক্রান্তিতে মা মনসা দেবীর পূজার উপকরণাদি সহ  পূজা শুর” হয়।  এভাবেই চলে আসছে শ্রী শ্রী মনসা দেবীর পূজা আরচনা ও আনুষ্ঠান।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451