সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৬:২৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

গাইবান্ধায় আইন শৃংখলা কমিটির সমন্বয় বিষয়ক সভা

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় শনিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ১৫৮ বার পড়া হয়েছে

গাইবান্ধা থেকে শেখ হুমায়ুন হক্কানী ঃ আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে

আইন শৃংখলা বিষয়ক এক সমন্বয় সভা শনিবার গাইবান্ধা পুলিশ লাইনের

ড্রিল শেডে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা পুলিশ প্রশাসন এই সভার আয়োজন করে

এবং পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল ইসলাম এতে সভাপতিত্ব করেন।

সভায় বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আশফিকুজ্জামান আকতার,

গাইবান্ধা পৌরসভার মেয়র অ্যাড. শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবির মিলন,

গোবিন্দগঞ্জের মেয়র আতাউর রহমান সরকার, সুন্দরগঞ্জের মেয়র আব্দুলাহ আল

মামুন, র‌্যাব গাইবান্ধা-১৩ এর পরিচালক, চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি

শাহজাদা আনোয়ারুল কাদির, জেলা কমিউনিটি পুলিশ ফোরামের আহবায়ক

এম. আব্দুস সালাম, সম্পাদক প্রতাপ কুমার ঘোষ, মটর মালিক সমিতির

সভাপতি মকবুল হোসেন মুকুল, গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের সাধারণ

সম্পাদক আবু জাফর সাবু। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য জেলা দোকান

মালিক সমিতির সভাপতি মাকসুদার রহমান শাহান, জেলা ট্রাক মালিক

সমিতির সম্পাদক মোক্তাদিুর রহমান মিঠু, জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের

সভাপতি আব্দুর রশিদ প্রমুখ।

সমন্বয় সভায় বক্তারা সুষ্ঠভাবে আসন্ন ঈদুল আজহা উদযাপন উপলক্ষে আইন

শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে জনসচেতনতা সৃষ্টিসহ বিভিন্ন বিষয় তুলে

ধরে বক্তব্য রাখেন। এব্যাপারে পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, ঈদুল

আজহা উপলক্ষে আইন শৃংখলা রক্ষায় গাইবান্ধার পুলিশ প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ

গ্রহণ করবে। জেলার ৪১টি পশুরহাট এবং ১ হাজার ৩শ’ ঈদের জামাত এর আইন

শৃংখলা নিয়ন্ত্রনে স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন, কমিউনিটি পুলিশ ফোরামের

কর্মীর পাশাপাশি পুলিশ প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখভাল করবে।

এছাড়া কোরবানির পশু পরিবহন, ডাকাতি, ছিনতাই রোধে সড়ক ও নদী পথে

প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের উপর গুরুত্বারোপ করা হয়। পুলিশ সুপার

প্রতিটি পৌর এলাকা ও উপজেলা সদরের গুরুত্বপূর্ণ স্থান সমূহে সিসি

ক্যামেরার লাগানোর উপর গুরাত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, নির্ধারিত স্থানের

বাইরে কোরবানির পশুরহাট যাতে না বসে সেদিকে সংশিষ্ট সকলকে খেয়াল

রাখতে হবে। এছাড়া মুসলমান সম্প্রদায়ের লোকজন যেমন হিন্দু

সম্প্রদায়ের পূজার নিরাপত্তা বিধানে স্বতঃস্ফুর্তভাবে এগিয়ে আসে।

তেমনি মুসলমানরা যাতে ঈদুল আজহা উদযাপন করতে পারে সেক্ষেত্রে হিন্দু

সম্প্রদায়ের লোকজনদেরকেও তিনি স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দায়িত্ব পালন

করার জন্য এগিয়ে আসার আহবান জানান।

সভায় তিনটি পৌরসভার মেয়র, সাতটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা,

চেম্বারসহ বিভিন্ন ব্যবসায়িক সমিতি, কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম,

পরিবহন শ্রমিক ও মালিক সমিতির সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451