রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০২:৫৫ পূর্বাহ্ন

লক্ষ্মীপুরে আইনশৃঙ্খলা চরম অবনতি, জনমনে আতঙ্ক

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর, ২০১৬
  • ১২৯ বার পড়া হয়েছে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি ঃ  লক্ষ্মীপুরে আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি হয়েছে। এতে করে সাধারণ জনগনের মাঝে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ দিকে জেলা শহরসহ ৫টি উপজেলায়  চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি, নারী নির্যাতন, ধর্ষণ ও মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধ বেড়ে গেলেও  বৃহস্পতিবার জেলা আইনশৃঙ্খলা সভায় সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতির কারণে খোদ আইনশৃঙ্খলা কমিটির সদস্য ও জজ কোর্টের সরকারী কৌশুলী  (পিপি) মো. জসিম উদ্দিন সভায় উপস্থিত ছিলেন না বলে জানা গেছে। সভায় কমিটির উপদেষ্টা ৪ জন স্থানীয় সাংসদ, সদস্য জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, লক্ষ্মীপুর ও রায়পুর পৌরসভার মেয়র এবং লক্ষ্মীপুর প্রেসক্লাবের প্রতিনিধিসহ অনেক সদস্যই সভায় অনুপস্থিত ছিলেন। বৃহস্পতিবার সকালে অনুষ্ঠিত আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায়, সদস্য না হওয়ার অজুহাতে উপস্থিত সাংবাদিকদেরও আইনশৃঙ্খলার বিষয়ে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা।

জানা যায়, গত ৩ মাসে লক্ষ্মীপুর শহরে দিনে ও রাতে কমপক্ষে ২০ টি চুরি সংঘটিত হয়। এ ছাড়াও জেলায় মাদকের ব্যবহার আশংকাজনক হারে বেড়ে যাওয়ার জেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি চরম অবনতির অভিযোগ উঠেছে। তাছাড়া শিশু ধর্ষণসহ নানান অপরাধ প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে।

আইনশৃঙ্খলা সভা সূত্রে জানা গেছে, গত জুলাই মাসে লক্ষ্মীপুর জেলায় ১টি ডাকাতি, ৩টি খুন, ৬টি নারী ও শিশু নির্যাতন, ১টি দস্যুতা , ১টি অপহরণ, ১টি সিধেঁর চুরি,  ৪১টি মাদক  ও  ৭টি চুরির ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু প্রকৃত ঘটনার সংখ্যা অনেক বেশী বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করেন।

লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপার আসম মাহাতাব উদ্দিন আইনশৃঙ্খলা সভায় বলেন,  কিছু চুরির ঘটনা ঘটলেও সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো আছে। সভায় জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী আইনশৃঙ্খলা সার্বিক বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, আমরা ভালো আছি।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ২২ সেপ্টেম্বর রাতে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ও লক্ষ্মীপুর জজ কোর্টের সরকারী কৌশুলী মো. জসিম উদ্দিনের বাসার কলাপসিবল ২টি গেইটের তালা ভেঙ্গে ১ লাখ ৪০ হাজার মূল্যের (ডিসকভার) মটরসাইকেল চুরি করে নিয়ে যায়। কিন্তু মামলার ৮ দিন পার হয়ে গেলেও এখনো তা উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।  ৪ সেপ্টেম্বর দুপুরে পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের ভূঁইয়ার বাড়ির বাসিন্দা ও সময় টেলিভিশনের লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি মাহবুবুল ইসলাম ভৃঁঞার ঘরের দরজা ভেঙ্গে  নগদ ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও ১৫ ভরি স্বর্ণাঅলংকার সহ প্রায় ১০ লাখ টাকা মালামাল নিয়ে যায়। ৫ সেপ্টেম্বর একই ওয়ার্ডের বিদ্যা নিকেতন সড়কের আবদুল কাদের পাটোয়ারীর মুদি দোকানে প্রবেশ করে নগদ টাকাসহ  ২০ হাজার টাকা মালামাল চুরি হয়।

একই এলাকার লক্ষ্মীপুর সরকারী মহিলা কলেজের প্রভাষক ফখরুল ইসলাম ও মো. মিজানুর রহমানের বাসায় ১৩ আগষ্ট দিনে দুপুরে দরজার তালা ভেঙ্গে নগদ ১ লাখ ৫ হাজার টাকা ও একটি ল্যাপটপসহ প্রায় ১ লাখ ৩০ হাজার টাকার মালামাল নিয়ে যায়। একই এলাকার নুর মোহাম্মদ ভান্ডারীর ভাড়াটিয়া আবুল বাশারের বাসায় চোরেরা ডুকে নগদ টাকা ও স্বর্ণ অলংকারসহ প্রায় ৫০ হাজার টাকা মালামাল নিয়ে যায়। লক্ষ্মীপুর শহরের ৬নং ওয়ার্ড জেবি রোডের বাসিন্দা ও লক্ষ্মীপুর জজ কোর্টের মো: সেলিম পেশকারের বাসায় দিনে দুপুরে দরজার তালা ভেঙ্গে নগদ টাকা ও স্বর্ণ অলংকারসহ প্রায় ৩ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। ল’ইয়ার্স কলোনী থেকে জেলা যুবলীগের সদস্য শেখ হারুনের বাসার দরজা ভেঙ্গে নগদ টাকা ও স্বর্ণ অলংকারসহ প্রায় দেড় লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। একই এলাকার জেলা সমাজ সেবা অফিসের একটি মটরসাইকেল চুরি হয়।

২৩ আগষ্ট রাতে শহরের হাসপাতাল সড়কের শিউলি মঞ্জিলের নীচ তলা থেকে ডেইলি অবজারভার পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি মো. রবিউল ইসলাম খাঁনের দেড় লাখ টাকার মূলের নতুন মটরসাইকেলটি চুরি হয়। শহরের কালু হাজি সড়কের আনোয়ার মাষ্টারের বাসা ও  পিন্টুর বাসায় চুরি সংঘটিত হয়।

শহরের ৮নং ওয়ার্ডের শরাফত উল্যার মাষ্টারের বাসার জানালার গ্রিল কেটে নগদ ২০ হাজার  টাকা ও ৫ ভরি স্বর্ণ অলংকার চুরি হয়। ট্রাফিক পুলিশ (টিআই) ডি কে বড়ুয়ার ভাড়া বাসার কলাপসিবল গেইটের তালা ভেঙ্গে টিআই এবং বাসার মালিকের  মটরসাইকেল ২টি চুরি করে নিয়ে যায়।

গত ৭ সেপ্টেম্বর ১নং হামছাদী ইউনিয়নে ব্যবসায়ী কাউছারের ৭টি গরু চুরি করে নিয়ে যায়। এসব চুরির ঘটনায় এলাকাবাসী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

লক্ষ্মীপুর জজকোর্টের সরকারী কৌশুলী ও আইনশৃঙ্খলা কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন ক্ষোভ প্রকাশ করে সাংবাদিকদের বলেন, আইনশৃঙ্খলা সভায় গিয়ে লাভ কি? লক্ষ্মীপুরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটেছে। চুরি, ডাকাতি, মাদক, নারী নির্যাতনসহ নানান অপরাধ বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে উল্লেখ যোগ্য কোন পদক্ষেপ নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451