রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৫:৩৯ পূর্বাহ্ন

শুক্রবারের ১৮ জনের পর শনিবারও সড়ক কেড়ে নিল ২০ প্রাণ

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ১০০ বার পড়া হয়েছে

 

 

 

 

 

সারা দেশে সাত জেলায় শনিবার সড়ক দুর্ঘটনায় ২০ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে টাঙ্গাইলেই নিহত হয়েছেন ১১ জন। এ ছাড়া সিলেটে দুই শিশু, রাজশাহীতে দুজন নিহত হয়েছেন। ঝালকাঠি, মুন্সীগঞ্জ, শেরপুর ও ফরিদপুরে একজন করে নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার দেশের বিভিন্ন স্থানে ১৮ জন নিহত হয়।

আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন :
টাঙ্গাইলে পৃথক তিনটি সড়ক দুর্ঘটনায় ১১ জন  নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ৩০ জন। শনিবার সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল মহাসড়কে এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

টাঙ্গাইল গোড়াই হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান পাটোয়ারী জানান, সকাল ৭টার দিকে উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকাগামী একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মির্জাপুরের কুর্নি এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুজন নিহত হয়। পরে হাসপাতালে আরো তিনজন মারা যান। এখানে মোট পাঁচজন নিহত হন।

এ দিকে, সকাল ৯টার দিকে টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের কালিহাতী উপজেলার আনাইলাবাড়ি এলাকায় প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে ঘটনাস্থালে মোটরসাইকেল আরোহীসহ দুজন নিহত হয়। তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে আরো অন্তত ২০ জন।

শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়কে উপজেলার নরকোনা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। হতাহতদের নাম-পরিচয় প্রাথমিকভাবে জানা যায়নি।

মধুপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার লাভলু তরফদার এনটিভি অনলাইনকে জানান, প্রান্তিক পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস ময়মনসিংহ থেকে টাঙ্গাইলের দিকে যাচ্ছিল। নরকোনায় এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সঙ্গে বাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় প্রায় ৩০ জন যাত্রী আহত হয়।

আহতদের উদ্ধার করে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক চারজনকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা।

এ ছাড়া কয়েকজনের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলায় যাত্রীবাহী বাস ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরেক নারী আরোহী। শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় ঝালকাঠি-পিরোজপুর আঞ্চলিক মহাসড়কে উপজেলার পিংড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত সজীব হাওলাদার রাজাপুর উপজেলার আলগী গ্রামের সেলিম হাওলাদারের ছেলে এবং মো. খলিল পটুয়াখালীর তাফালবাড়ি গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে। খলিল সজীবের ভগ্নিপতি।

দুর্ঘটনায় আহত সজীবের বোন শারমিন আক্তারকে গুরুতর আহত অবস্থায় রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

রাজাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম আজাদ বলেন, পুলিশ বাসটিকে আটক করলেও চালক ও তাঁর সহকারী পালিয়ে যান। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

রাজশাহী মহানগরীর সপুরা এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোরিকশা উল্টে চালকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত অটোচালক হাসান (১৪) নগরীর মালদা কলোনি খ্রিস্টানপাড়া এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে। আজ শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন হাসানকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কিছুক্ষণ পর তার মৃত্যু হয়।

বোয়ালিয়া মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেলিম বাদশা জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় বাসচাপায় অজ্ঞাতপরিচয়ের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে উপজেলার ষোলঘর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বৃদ্ধের বয়স আনুমানিক ৬০ বছর। ময়নাতদন্তের জন্য তাঁর লাশ মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাহিদুর রহমান জানান, আজ দুপুরে ষোলঘর এলাকায় মহাসড়কের পাশে ওই বৃদ্ধ দাঁড়িয়েছিলেন। এমন সময় ডিএম পরিবহনের ঢাকাগামী একটি বাস তাঁকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

বাসটি আটক করা যায়নি এবং নিহত বৃদ্ধের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।

ফরিদপুর সদর উপজেলায় বাসচাপায় জয়নাল শেখ (৫৮) নামে এক পথচারী নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুরে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে উপজেলার মল্লিকপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশের সার্জেন্ট ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, ঢাকা থেকে কুষ্টিয়াগামী এম এম পরিবহনের একটি বাস পথচারী জয়নালকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

বাসটি আটক করা হলেও চালক ও তাঁর সহকারী পালিয়ে গেছে বলে জানান সার্জেন্ট।

শেরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ষাটোর্ধ্ব এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। আজ শনিবার সকালে সাড়ে ১০টার দিকে ঝিনাইগাতী উপজেলার গাজীকুড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত বৃদ্ধের নাম ফকির মাহমুদ। তিনি নকলকুড়া ইউনিয়নের মানিকুড়া গ্রামের বাসিন্দা।

ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, সকালে গজারীকুড়া নামক জায়গায় ব্যাটারি চালিত রিকশায় ওঠার সময় একটি দ্রুতগতির মোটরসাইকেল ফকির মাহমুদকে ধাক্কা দিলে তিনি গুরুতর আহত হন। এ সময় আশপাশের লোকজন এবং মোটরসাইকেলচালক মিলে ফকির মাহমুদকে ঝিনাইগাতী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তবে সেখানে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক ফকির মাহমুদকে মৃত ঘোষণা করেন। মোটরসাইকেল চালক নূর আলমকে আটক করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

সিলেটের গোলাপগঞ্জে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে দুই শিশু বোন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ১৫ জন। শনিবার সকালে সিলেট-বিয়ানীবাজার-জকিগঞ্জ সড়কের ফুলবাড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো, গোলাপগঞ্জের গোয়াসপুর গ্রামের কয়েছ মিয়ার মেয়ে শুভা (১১) ও তাম্মি (৬)। শুভা স্থানীয় একটি স্কুলের ষষ্ঠ ও তাম্মি নার্সারিতে পড়ালেখা করত।

গোলাপগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মীর মো. আবু নাসের জানান,  সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সিলেট থেকে বড়লেখাগামী একটি যাত্রীবাহী মিনিবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে উল্টে যায়। এ সময় অন্তত ১৫ জন আহত হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451