শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১২:৩৯ অপরাহ্ন

দালাল কর্তৃক অবৈধ গ্যাস সংযোগ দিয়ে সরকারের কোটি কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি-গ্রেফতারের ভয়ে প্রায় ৪০ হাজার লাইন বিছিন্ন!

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ৭৪ বার পড়া হয়েছে

হেলাল শেখ ঢাকা ঃ

ঢাকার সাভার আশুলিয়ায় দালাল কর্তৃক বিভিন্ন এলাকায় বাসা বাড়িতে অবৈধ গ্যাস

সংযোগ দিয়ে সরকারের কোটি কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেয়া হয়েছে। এখন- বাসা

বাড়ির মালিকরা গ্রেফতার হওয়ার ভয়ে প্রায় ৪০ হাজার অবৈধ লাইন বিছিন্ন করা হয়েছে

বলে এলাকাবাসীরা জানান।

গত ২৯/০৮/২০১৬ ইং তিতাস ট্রান্সমিশন এ্যান্ড ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানীর উপ-

মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মোহাম্মাদ মোকছেদুর রহমানের নেতৃত্বে আইনগতভাবে

আশুলিয়া ইউনিয়নের বাসাইদ এলাকায় অভিযান চালিয়ে “২২০০/ অবৈধ গ্যাস সংযোগ

বিছিন্ন করার খবর ছড়িয়ে পড়লে, পুরো সাভার আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকার বাসা বাড়ির

মালিকরা তাদের গ্রেফতার হওয়ার ভয়ে বেশিরভাগ অবৈধ গ্যাস সংযোগ লাইন খোলে

বিছিন্ন করেছে।

ঢাকার “সাভার আশুলিয়ায় হাজার হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ”শিরোনামে খবর- দৈনিক

বাংলাদেশেরপত্র ও দৈনিক বাংলার প্রতিদিন পত্রিকাসহ একাধিক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ায়,

সাভার তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এ্যান্ড ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানীর উপ-মহাব্যবস্থাপক

প্রকৌশলী মোহাম্মাদ মোকছেদুর রহমানের নেতৃত্বে আশুলিয়া ইউনিয়নের বাসাইদ

এলাকায় অবৈধ গ্যাস বিছিন্ন শুরু করা হয়। মোকছেদুর রহমান সাংবাদিকদের জানান,

আশুলিয়ার বাসাইদ এলাকায় রাজু আহম্মেদ নামে এক ব্যক্তি বিভিন্ন পরিবারের কাছ থেকে

প্রায় ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে প্রায় ২২‘শ পরিবারের রাতের আধারে অবৈধ গ্যাস

সংযোগ দেয়।

উক্ত এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিছিন্ন অভিযানে প্রায় ২২‘শ পরিবারের অবৈধ

গ্যাস সংযোগ বিছিন্ন করা হয়েছে। এ এলাকায় ৫টি পয়েন্ট মাটির নিচে থাকা

গ্যাসের পাইপ তুলে নিয়ে লাইনের গ্যাস সংযোগ বন্ধ করে সিলগালা করা হয়েছে। অবৈধ

গ্যাস সংযোগ প্রদানকারী ঠিকাদার রাজুর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে

তিতাস গ্যাস অফিসের কর্মকর্তারা জানান। সেই সাথে এলাকার সকল অবৈধ গ্যাস

সংযোগ বিছিন্ন করা হবে এবং অবৈধ গ্যাস সংযোগ ব্যবহারকারীদের গ্রেফতার করা

হবে বলে প্রচার হওয়ায়,বাসা বাড়ির অবৈধ গ্যাস লাইন নিজেরাই বন্ধ করে দিয়েছে। তাহলে

প্রশ্নঃ বছরের পর বছর সরকারের শত শত কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি এই ভাবেই দেয়া হয় না

কি?

বৃহস্পতিবার সাভার আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, এসব

অবৈধ গ্যাস সংযোগ পেতে এক একজনের ৪০ হাজার এবং ৫০ হাজার টাকা দিতে হয়েছে।

এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, সাভারে প্রায় ৪০ হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেয়া

হয়েছিলো! আর গড়ে ৫০ হাজার টাকা নেওয়া হলে, কত কোটি টাকা সরকারকে রাজস্ব

ফাঁকি দিয়েছে এই দালাল চক্রটি হিসাব আছে কি? এলাকাবাসীর প্রশ্ন ঃ ছিলো,

সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মকর্তাদের না জানিয়ে শুধু দালালরা রাতের আধারে কিভাবে গ্যাস

সংযোগ দিয়েছে? আর কোন খুঁটির জোড়ে এইসব অবৈধ গ্যাস সংযোগ দিয়ে

সরকারের কোটি কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া হয়েছে ? এলাকাবাসী বলছে,অফিসের

কর্মকর্তারা জড়িত না থাকলে কি করে হাজার হাজার গ্যাস সংযোগ দেয়া যায়? গ্যাস

সংযোগ নিয়ে বাসা ভাড়া রুম প্রতি ৫০০/ টাকা বৃদ্ধি করেন মালিকরা, এখন সেই

লোকসানের ফাঁদে পড়েছেন অনেক বাসা বাড়ির মালিক। এলাকার অনেক বাসা বাড়ির

মালিকরা জানান,অবৈধকে বৈধ করে দেয়া হলে সরকার কোটি কোটি টাকা রাজস্ব আদায়

করতে পারবে। অন্যদিকে অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিছিন্ন‘র খবর পেয়ে সিলিন্ডার গ্যাসের

দাম প্রায় ডাবল বৃদ্ধি করেছে দোকানদাররা। ৮‘শ, টাকার গ্যাস সিলিন্ডার এখন বিক্রি করা

হচ্ছে ১৫ থেকে ১৬‘শ টাকায়। এই দাম কি সরকার বৃদ্ধি করেছে? না কি দোকানদারের

মনগড়া দামে বিক্রি করছে। সরকার যদি সঠিকভাবে নজর দেয় তাহলে শত শত কোটি টাকা

রাজস্ব আদায় করতে পারবে বলে সচেতন মহলের ধারণা। সুত্রে জানা গেছে, সারাদেশে এ রকম

লাখ লাখ অবৈধ গ্যাস সংযোগ রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451