সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৫৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
নাগেশ্বরীতে সংবাদ টিভির ৫ম তম প্রতিষ্ঠাতা বার্ষিকী উদযাপন ছাত্রলীগের সম্মেলনে আয়োজকদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে মঞ্চ ছাড়লেন আ. লীগের চার নেতা যশোরে খাবার হোটেলে ঢুকে পড়ল কাভার্ড ভ্যান, পাঁচজনের মৃত্যু সড়ক পরিবহন মালিক ধর্মঘট শুরু, পাবনায় জনদুর্ভোগ চরমে অভিনেত্রী রোশনি ভট্টাচার্যের একই পাত্রকে দ্বিতীয়বার বিয়ে করতে যাচ্ছেন হবিগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ : দুই আসামির ফাঁসির আদেশ পেনাল্টি কিকগুলো আমি হলেও মিস করতাম না : তসলিমা ডিআরইউ নির্বাচনের পরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে একত্রে বগুড়ায় বস্তিবাসীর তথ্যে দুর্ঘটনার কবল থেকে রক্ষা লালমনি এক্সপ্রেস কভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধে টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়ার সুপারিশ

বিদ্যুৎকেন্দ্র রামপাল থেকে সরান, নইলে পতন: জেএসডি

বাংলার প্রতিদিন ডেস্ক ::
  • আপডেট সময় রবিবার, ২৮ আগস্ট, ২০১৬
  • ১২৯ বার পড়া হয়েছে

রামপালে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের প্রকল্প বাতিল করা না হলে সরকারের বিরুদ্ধে ‘উনসত্তর সালের মতো গণঅভ্যুত্থান’ হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সভাপতি আসম আবদুর রব।

“আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, রামপালে বিদ্যুৎ প্রকল্প বন্ধ করতে হবে। এই প্রকল্প রামপাল থেকে সরান। তা না হলে উনসত্তরের মতো একটা গণঅভ্যুত্থান হবে সরকার পতনের জন্য। রামপাল আন্দোলনে আপনার সরকার উড়ে যাবে।”

শনিবার দুপুরে রাজধানীতে এক আলোচনা সভায় সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “এতো প্রেম কেন? রামপালে করতে হবে কেন? বাংলাদেশে আর কোথাও জায়গা নাই। আইল্যান্ডে যান, নিঝুম দ্বীপে যান, সেন্টমার্টিনে যান, জায়গার তো অভাব নাই।”

নাগরিক ঐক্যের উদ্যোগে ‘সুন্দরবন রক্ষা কর, পরিবেশ বাঁচাও এবং গ্যাসের দাম বাড়ানোর যাবে না’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা হয়।

সাবেক মন্ত্রী আসম আবদুর রব বলেন, “ভারতে ২৬ কিলোমিটার দূরে বিদ্যুৎকেন্দ্র করার প্রকল্প ছিল, তারা অনুমতি দেয় নাই। আর আমাদের এখানে দূরত্ব ১৪ কিলোমিটার।এই বিদ্যুৎকেন্দ্র রামপালে হলে সুন্দরবনের বাঘ থাকবে না, হরিণ থাকবে না, পশু-পক্ষী থাকবেন না- এটা একটা মরুভুমিতে পরিণত হবে। গাছ-গাছড়া সমস্ত মরে যাবে। এই প্রকল্প অবশ্যই বন্ধ করতে হবে।”

সুন্দরবনের কাছে রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের বিরুদ্ধে তেল-গ্যাস কমিটির ঘোষিত ২৪ অগাস্ট ‘ঢাকা চলো’ কর্মসূচির প্রতি একাত্মতা ঘোষণা করে তিনি বলেন, “সকলকে অনুরোধ করব, ‘চলো চলো, রামপাল চলো’- এই শ্লোগান নিয়ে আমরা কিছু দিনের মধ্যে আমরা রামপালে যাত্রা শুরু করবো। আমরা দেখি সেখানে আমাদের কিভাবে ঠেকায়?”

সরকার জঙ্গিবাদের ইস্যুকে টিকিয়ে রাখতে চায় অভিযোগ করে রব বলেন, “আগামী নির্বাচন যাওয়ার আগ পর্যন্ত জনগণের কাছে সমর্থন আদায়ে জন্য একে টিকিয়ে রাখতে আজকে এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। আসলে তারা জঙ্গি দমন করতে চায় না। এক-একটা মামলা দীর্ঘদিন পর্যন্ত তারা (সরকার) ঝুলিয়ে রেখেছে।”

নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্নার ওপর সরকারের প্রতিহিংসার কথা উল্লেখ করে আসম আবদুর রব বলেন, “মান্না আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। তিনি সেখান থেকে বেরিয়ে এসে নাগরিক ঐক্য করেছেন, সেই প্রতিহিংসায় প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য মান্নাকে কারাগারে নিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে।

“আমরা মনে করি, মান্না সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে একটা তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি গড়ে তুলতে চেয়েছেন সেজন্য সরকার তাকে জেলে ঢুকিয়েছে। এই বর্বর, ফ্যাসিবাদী নির্যাতন। সরকারকে বলব, এটা বন্ধ করুন।

“মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলব, মান্না জাতীয় নেতা, তাকে মুক্তি দিন। তা না হলে মান্নার মুক্তির আন্দোলন ও রামপালের আন্দোলন মিলে আপনার সরকার কিন্তু উড়ে যাবে। আমরা কেউ ঘরে বসে থাকব না।”

নাগরিক ঐক্যের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক এস এম আকরামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, গণস্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী ও আওয়ামী লীগের সাবেক গোলাম মওলা রনি বক্তব্য রাখেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © banglarprotidin.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbanglaro4451